Sunday, March 09, 2008

শেষের কবিতা

আমি আজ একজন লজ্জিত বাঙ্গালী। আমি লজ্জিত এই কারণে যে আমার সমসাময়িক অনেক বাঙ্গালীর মত আমারও বাংলা সাহিত্যের হাতেখড়ি হয়েছে হুমায়ূন আহমেদ কিংবা সমরেশ মজুমদারের মাধ্যমে।যদিও তাঁরা অত্যন্ত গুণী লেখক, আমি তাঁদের লেখা পড়েই যে বাংলা সাহিত্য সম্পর্কে অনেক মন্তব্য করেছি, তা যে রীতিমতো অর্বাচীন এর মত কাজ হয়েছে সে সম্পর্কে আমার কোন সন্দেহ নেই।

আমি কিছুক্ষণ আগে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর এর ' শেষের কবিতা' পড়ে শেষ করলাম। অনেক দেরিতেই রবি ঠাকুরের লেখাটি পড়লাম।ইংরেজীতে একটা কথা আছে, ' Better late than never'- সে কথা ভেবেই কিছুটা স্বস্তি পাচ্ছি। তা নাহলে এ অপরাধ ক্ষমার অযোগ্য।

রবিবাবুর অসাধারণ লেখনীশক্তির সাথে আমার শৈশবেই পরিচয় ঘটেছিলো আমার মায়ের 'সঞ্চয়িতা'র মাধ্যমে। কিন্তু রবি ঠাকুর এর লেখা পড়ার সুযোগের সমাপ্তি ঘটে বিলেতে আসার পর। আজ দীর্ঘদিন পর ইন্টারনেটের বদৌলতে আবার রবীন্দ্রনাথের রচনা পড়ার সুযোগ এলো।

আমি 'শেষের কবিতা' এর ব্যপারে অনেক কথা শুনেছি। রবীন্দ্রভক্তদের কাছে এটি অবশ্যপঠনীয়। আমি একটুও বিস্মিত নই। গল্পটি আসলেই অসাধারণ। তাঁর অদ্ভুত লেখনীশক্তি। গল্পটি আমাকে পুরো ২ ঘন্টা নড়চড় করতে দেইনি। আমি প্রেমের গল্পের ভক্ত নই। আমার কাছে প্রেমের গল্পগুলোকে মায়াজালের আহবান বলে মনে হয়। কিন্তু আমিও শেষ পর্যন্ত্য রবীন্দ্রনাথের লেখনীর মায়াজালে আবদ্ধ হলাম তাঁর প্রয়াণের আধা-শতবর্ষ পর।ধন্য রবীন্দ্রনাথ!

হুমায়ুন আহমেদ তাঁর 'মধ্যাহ্ন' উপন্যাসে লিখেছেন রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর বাংলাদেশকে ১০০ বছর এগিয়ে দিয়ে গেছেন। আমি শ্রদ্ধ্যেয় হুমায়ুন আহমেদের সাথে সম্পূর্ণ একমত। রবীন্দ্রনাথ শুধু বাংলা সাহিত্যকেই সমৃদ্ধ করেন নি, তিনি তাঁর সমসাময়িক হিন্দু সমাজের নানা বৈষম্যের বিরুদ্ধেও যুদ্ধ করেছেন।

No comments: